বলিউড অভিনেতা সুশান্তের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার


লম্বা সুঠাম চেহারা। মন ভাল করা হাসি। আর হৃদয় ছোঁয়া অভিনয়। এই দিয়ে অনুরাগীদের মনের মণিকোঠায় জায়গা করে নিতে বিশেষ সময় লাগেনি তাঁর। পর্দার মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ভক্তরা মাথায় তুলে রেখেছিলেন। কিন্তু এত তাড়াতাড়ি যে জীবনকে কাই পো চে (ভো-কাট্টা) করে দেবেন সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput), কে জানত! তিনি আর নেই যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না অনুরাগীরা।

ইরফান খান, শাহরুখ খানদের মতোই সিরিয়াল দিয়ে অভিনয় কেরিয়ার শুরু করেছিলেন। পৌঁছেছিলেন সাফল্যের শিখরে। ‘কিস দেশ মে হ্যায় মেরা দিল’ দিয়ে ইন্ডাস্ট্রিতে পদার্পণ। আর ‘পবিত্র রিস্তা’ দিয়ে ছোটপর্দাকে আলবিদা। রুপোলি পর্দার গ্ল্যামারাস দুনিয়া সুশান্তকে দু’হাত বাড়িয়ে স্বাগত জানিয়েছিল। ক্রিজে নেমে প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকাতে আর ক’জন পারেন। সুশান্ত পেরেছিলেন। ‘সুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’-এ তাঁর রোম্যান্টিক অবতার একেবারে পাশের বাড়ির ছেলেতে পরিণত করেছিল সুশান্তকে। সিনেপ্রেমীদের একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন পাটনার যুবক।

সুশান্ত সিং রাজপুত

৩ দিন আগে সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার, ২৮ বছর বয়সী দিশা সালিয়ান উঁচু বিল্ডিং থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করে। আর আজ রোববার সুশান্তের মুম্বাইয়ের বাসায় তাঁর লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। সুশান্তের বয়স হয়েছিল ৩৪ বছর। কোন সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। মুম্বাই পুলিশ তাঁর মৃত্যু রহস্য উদ্‌ঘাটনে কাজ করছে।

এমএস ধোনি হোক কিংবা পিকে, এসব ছবিতে কিন্তু মানুষকে ঘুরে দাঁড়ানোর অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিলেন সুশান্ত। রিল লাইফের নায়করা যে রিয়েল লাইফের মানুষগুলির কাছে আইকনে পরিণত হন। তেমনই সুশান্তের আত্মত্যাগ, কাজের প্রতি ভালবাসা তাঁর ভক্তদের অনুপ্রেরণা দিয়েছে বইকী। স্টারডম সামলেও যে একজন ভাল অভিনেতা হওয়া যায়, তা বক্স অফিসে ঝড় তুলে আর অভিনয় দিয়ে মন জয় করে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন সুশান্ত।

একতা কাপুরের জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল ‘পবিত্র রিশতা’ থেকে ‘কাই পো চে’, ‘এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘কেদারনাথ’, ‘সঞ্চরিয়া’ অসংখ্য ছবি দিয়ে তিনি ছোট পর্দা থেকে বলিউডের বড় পর্দায় সফল অভিনেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

Related Articles  যত বাড়াবাড়ি তত নোবেল এর লাভ

সবচেয়ে বেশি আলোচনার কেন্দ্রে এসেছিলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনির বায়োপিকে অভিনয়ের মাধ্যমে। সুশান্তর ক্যারিয়ারে এটাই প্রথম সিনেমা যা বেশ ভালো ব্যবসা করেছিল। ১৯৮৬ সালে বিহারের পটনায় জন্ম সুশান্তের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *